Staff Reporter

কপ্টার বিভ্রাটের সময় পা ও কোমরে চোট মুখ্যমন্ত্রীর, কলকাতায় ফিরতেই নিয়ে যাওয়া হল এসএসকেএমে

উত্তরবঙ্গে কপ্টার বিভ্রাটের সময় পা এবং কোমরে চোট পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিকেল ৫টার কিছু ক্ষণ আগে কলকাতা বিমানবন্দরে নামার পর তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে এসএসকেএম হাসপাতালে। বিমানবন্দরে অ্যাম্বুল্যান্সের ব্যবস্থা রাখা হয়েছিল। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী তাঁর গাড়ি করেই হাসপাতালের উদ্দেশে রওনা হন। হাসপাতালে তাঁর গাড়ি পৌঁছলে হুইল চেয়ার এনে দেন কর্মীরা। যদিও মুখ্যমন্ত্রী হুইলচেয়ারে উঠতে চাননি। গাড়ি থেকে নামার পর একটু ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন তিনি। তখন তাঁকে কোমরে হাত দিয়ে ধরে নেন এক মহিলা কর্মী। ধরে ভিতরে নিয়ে যান। মমতা একটু খুঁড়িয়ে হেঁটে হাসপাতালে ঢোকেন। বোঝা যায়, তাঁর হাঁটতে সমস্যা হচ্ছে।

মমতার চোট কতটা তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে এসএসকেএমে। এমআরআই পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে তাঁকে। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রীর জন্য তৈরি রাখা ছিল উডবার্ন ওয়ার্ডের সাড়ে ১২ নম্বর কেবিন। সেখানেই পরীক্ষা-নিরীক্ষার যাবতীয় ব্যবস্থা করা হয়। তৈরি ছিলেন চিকিৎসকেরাও। এসএসকেএমে ইতিমধ্যে পৌঁছে গিয়েছেন রাজ্যের স্বাস্থ্যসচিব নারায়ণস্বরূপ নিগম, স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়।

মঙ্গলবার দুপুরে জলপাইগুড়ির মালবাজারে মুখ্যমন্ত্রীর পঞ্চায়েত ভোটের প্রচারসভা ছিল। সভা শেষ করে জলপাইগুড়ির ক্রান্তি থেকে বাগডোগরার উদ্দেশে হেলিকপ্টারে রওনা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সঙ্গে ছিলেন সাংবাদিক বিশ্ব মজুমদার এবং মুখ্যমন্ত্রীর দেহরক্ষী স্বরূপ গোস্বামী। মাঝপথে আকাশ কালো করে প্রবল বৃষ্টি শুরু হয়। তিন দিকের আকাশ কালো করে আসে। পাইলট বোঝেন এগোনো ঠিক হবে না। নীচে বৈকণ্ঠপুরের ঘন জঙ্গল থাকায় তিনি তখনই কপ্টার নামাতে পারেননি। বাগডোগরার দিকে যাওয়ার প্রশ্ন নেই। অগত্যা তিনি গতিমুখ পরিবর্তন করে উড়তে থাকেন শিলিগুড়ির দিকে।

Advertisement

শেষপর্যন্ত শিলিগুড়ির উপকণ্ঠে শালুগাড়ার কাছে সেবক এয়ারবেসে জরুরি অবতরণ করে মুখ্যমন্ত্রীর কপ্টার। বস্তুত, ওখানে যে কোনও এয়ারবেস রয়েছে, তা কারওরই সে ভাবে জানা ছিল না। অনেকটা কপালজোরেই এয়ারবেসটি চোখে পড়ে পাইলটের। সেখানে জরুরি অবতরণ করেন তিনি। মুখ্যমন্ত্রী-সহ কপ্টারের অন্য যাত্রীদের ওই এয়ারবেসের কর্তারা নিরাপদে কাছের সেনা কার্যালয়ে নিয়ে যান। সেখানেই তাঁদের রাখা হয়। প্রশাসনিক সূত্রে জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রীর জন্য শালুগাড়ার সেনা কার্যালয়ে পুলিশি প্রহরায় গাড়ি পাঠানো হয়। সেই গাড়িতেই মুখ্যমন্ত্রী এবং তাঁর সঙ্গীরা বাগডোগরার উদ্দেশে রওনা হন।

বিকেলে বাগডোগরা থেকে বিমানে কলকাতায় ফেরেন মমতা। মুখ্যমন্ত্রীর কপ্টার জরুরি অবতরণ করার পর ফোন করে মমতার খবর নেন রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস। বিমানবন্দর থেকে মুখ্যমন্ত্রীকে সোজা নিয়ে যাওয়া হয় এসএসকেএম হাসাপাতালে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)

Advertisement

আরও পড়ুন

Latest articles

Leave a Comment

%d bloggers like this: