ব্ল্যাক মাম্বা

ব্ল্যাক মাম্বা হল আফ্রিকার সবচেয়ে বিষধর সাপ। এদের বিষ খুবই বিষাক্ত। এদের কামড়ে সাধারণত ১৫ মিনিটের মধ্যেই মৃত্যু হয়। ব্ল্যাক মাম্বা খুব দ্রুত ছোটে। এরা সাধারণত দিনের বেলায় শিকার করে।

বোমাস্লাং সাপ

বোমাস্লাং সাপ হল আফ্রিকার একটি বিষধর সাপ। এরা সাধারণত গাছের ঝোপে লুকিয়ে থাকে। বোমাস্লাং সাপের বিষ খুবই বিষাক্ত। এদের কামড়ে সাধারণত ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই মৃত্যু হয়।

ফরেস্ট কোবরা

ফরেস্ট কোবরা হল দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার একটি বিষধর সাপ। এদের বিষ খুবই বিষাক্ত। এদের কামড়ে সাধারণত ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই মৃত্যু হয়। ফরেস্ট কোবরা সাধারণত মাটিতে বা গাছের ঝোপে লুকিয়ে থাকে।

কোস্টাল তাইপ্যান

কোস্টাল তাইপ্যান হল ইনল্যান্ড তাইপ্যানের পরেই বিশ্বের সবচেয়ে বিষধর সাপ। এদের বিষ ইনল্যান্ড তাইপ্যানের বিষের থেকে কিছুটা কম বিষাক্ত। কোস্টাল তাইপ্যানও অস্ট্রেলিয়ায় পাওয়া যায়। এরা সাধারণত রাতারাতি শিকার করে।

ডাউবিস'স সি স্নেক

ডাউবিস'স সি স্নেক হল বিশ্বের সবচেয়ে বিষধর সাগরীয় সাপ। এদের বিষ এতটাই বিষাক্ত যে, মাত্র ০.০৪ মিলিগ্রাম বিষই একটি মানুষের মৃত্যুর জন্য যথেষ্ট। ডাউবিস'স সি স্নেক প্রশান্ত মহাসাগরের উত্তর-পূর্বে পাওয়া যায়। এরা সাধারণত মাছ শিকার করে।

টাইগার স্নেক

টাইগার স্নেক হল অস্ট্রেলিয়ায় পাওয়া একটি বিষধর সাপ। এদের বিষ খুবই বিষাক্ত। এদের কামড়ে সাধারণত ১২ ঘণ্টার মধ্যেই মৃত্যু হয়। টাইগার স্নেক সাধারণত মাটিতে বা গাছের ঝোপে লুকিয়ে থাকে।

অস্ট্রেলিয়ান ব্রাউন স্নেক

অস্ট্রেলিয়ান ব্রাউন স্নেক হল অস্ট্রেলিয়ায় পাওয়া একটি বিষধর সাপ। এদের বিষ খুবই বিষাক্ত। এদের কামড়ে সাধারণত ২০ মিনিটের মধ্যেই মৃত্যু হয়। অস্ট্রেলিয়ান ব্রাউন স্নেক সাধারণত দিনের বেলায় শিকার করে।

ইন্দোনেশিয়ান কোবরা

ইন্দোনেশিয়ান কোবরা হল ইন্দোনেশিয়ায় পাওয়া একটি বিষধর সাপ। এদের বিষ খুবই বিষাক্ত। এদের কামড়ে সাধারণত ৩০ মিনিটের মধ্যেই মৃত্যু হয়। ইন্দোনেশিয়ান কোবরা সাধারণত দিনের বেলায় শিকার করে।

কালাচ

কালাচ হল এশিয়ার একটি বিষধর সাপ। এদের বিষ খুবই বিষাক্ত। এদের কামড়ে সাধারণত ৩০ মিনিটের মধ্যেই মৃত্যু হয়। কালাচ সাধারণত রাতে শিকার করে।

রেটিকুলেটেড পাইথন

রেটিকুলেটেড পাইথন হল বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ সাপ। এদের বিষ খুবই বিষাক্ত নয়।