মার্কেটে আকাশছোঁয়া টোম্যাটো, লঙ্কা, ভ্যালু বেঁধে দিল রাজ্য সরকার

Staff Reporter

মার্কেটে আকাশছোঁয়া টোম্যাটো, লঙ্কা, ভ্যালু বেঁধে দিল রাজ্য সরকার, সুফলে কত হ্রাস পায় মিলবে?

সমগ্র দেশ জুড়েই টোম্যাটো-সহ বিভিন্ন আনাজের মূল্য বেড়েছে বাজারে। রাষ্ট্রীয় সূত্রে খবর, অতিরিক্ত গরম, বর্ষা দেরিতে আসা তার সাথে টোম্যাটোর উদ্ভাবন কম হওয়ায় প্রাইস বেড়েছে।
মাসখানেক আগেও মার্কেটপ্লেসে টোম্যাটো মাত্র ৩-৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছিল। এক মাসের ভিতরে তা সেঞ্চুরি করে ফেলেছে। অগ্নি কেবলমাত্র যে টোম্যাটোতেই লেগেছে, এমন নয়। দামের ঝালে লঙ্কাও জ্বালিয়ে দিচ্ছে। সাধারণের পাতে সব হতে সহজলভ্য যে সব আনাজ-সব্জি, মার্কেটপ্লেসে তা কিনতে গিয়ে ছেঁকা লাগছে সাধারণ মানুষের। সিচুয়েশন সামাল দিতে সুফল বাংলা বিপণির মাধ্যমে ৮৯ টাকা কিলো দরে আমজনতার হাতে টোম্যাটো তুলে দেওয়ার জন্য উদ্যোগী হয়েছে রাজ্য সরকার।

আনাজের দর কন্ট্রোলে মুখ্যমন্ত্রী টান বন্দ্যোপাধ্যায় বছর প্রথমে টাস্ক ফোর্স কার্যনির্বাহক সমিতি প্রস্তুত করেছিলেন। সেই কমিটি গঠনের লক্ষ্য ছিল, আচমকা আনাজ-সব্জির দাম বেড়ে গেলে তা নিয়ন্ত্রণ করা। শনিবার মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই রাজ্যের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদীর নেতৃত্বে সেই টাস্ক ফোর্স বৈঠকে বসে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। স্থির হয়েছে, শনিবার হতে টোম্যাটো, করলা, পটল, বেগুন, ঢেঁড়সের মতো আনাজের সুফল বাংলা বিপণিতে কমপক্ষে ২০-২৫ শতাংশ কম দামে বিকোবে। খুচরো মার্কেটপ্লেসে টোম্যাটোর ভ্যালু কেজি প্রতি ৯৯ টাকা। সুফল বাংলায় তা মিলবে ৮৯ টাকায়। বাজারে কিলো প্রতি ৭৮ টাকায় বিক্রি হচ্ছে করলা। তা মিলবে ৬৫ টাকায়। পটলও কেজি প্রতি ৫ টাকা পাওয়া যাবে। সুফলে বেগুনও কেজি প্রতি ৮০ অর্থের পরিবর্তে ৭০ টাকায় মিলবে। ঢেঁড়সের দামও কেজি প্রতি ১৫ টাকা হ্রাস পায় পাওয়া যাবে ৪৫ টাকায়।

গোটা দেশ জুড়েই টোম্যাটো-সহ বিভিন্ন আনাজের মূল্য বেড়েছে বাজারে। সরকারি সূত্রে খবর, অতিরিক্ত গরম, বর্ষা দেরিতে আসা এবং টোম্যাটোর উদ্ভাবন কম হওয়ায় দর বেড়েছে। বাংলায় মূলত দক্ষিণের রাজ্য, বিশেষত কর্নাটক হতে আনাজ আসে। সেখানেও ঘাটতি দেখা গিয়েছে। যার জেরে গত ৭-১০ দিনে পাইকারি তার সাথে খুচরো বাজারে আশ্চর্য হারে আনাজের প্রাইস বেড়ে গিয়েছে। তা নিয়ে সাম্পপ্রতিককালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আক্রমণ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। জলপাইগুড়ির ক্রান্তির জনসভা হতে তিনি বলেন, “মুম্বইয়ে টোম্যাটোর দাম ১২০ টাকা কেজি, দিল্লিতে দর ১০০ টাকা কেজি। টোম্যাটোর জন্য সহায়ক মূল্যও কেন্দ্র দেয় না।” মুখ্যমন্ত্রীর আস্থা ছিল, “আমার এইখানে কৃষকদের কোনও সমস্যা হলে, আমি দেখে নিতাম।”

Advertisement

আরও পড়ুন

Latest articles

Leave a Comment

%d bloggers like this: