আদ্রায় তৃণমূল নেতা খুনে নিমিত্ত অভিযুক্তকে আগ্নেয়াস্ত্র সমেত ধরল পুলিশ! হত্যাকারী বিহারের বাসিন্দা

Staff Reporter

আদ্রায় তৃণমূল নেতা খুনে নিমিত্ত অভিযুক্তকে আগ্নেয়াস্ত্র সমেত ধরল পুলিশ! হত্যাকারী বিহারের বাসিন্দা

গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দলীয় কাজের জায়গায় গুলি করে খুন করা হয় আদ্রা টাউন তৃণমূলের সভাপতি ধনঞ্জয়কে। আততায়ীদের গুলিতে জখম হন ধনঞ্জয়ের দেহরক্ষী রাজ্য পুলিশের কনস্টেবল শেখর দাস।

বাঁকুড়ার আদ্রা নগর তৃণমূলের সভাপতি ধনঞ্জয় চৌবের হত্যার ঘটনায় মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার করল পুলিশ। বুধবার পুলিশের বিশেষ তদন্তকারী টিম (সিট) ধৃতের কাছ থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্রও পেয়েছে। পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতের নাম আরজু মালিক। তাঁর ঘর বিহারের জামুই এলাকায়।

গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দলীয় সমবেত যন্ত্রসংগীত অফিসে গুলি করে খুন করা হয় আদ্রা ছোট শহর তৃণমূলের সভাপতি ধনঞ্জয়কে। আততায়ীদের গুলিতে জখম হন ধনঞ্জয়ের দেহরক্ষী রাজ্য পুলিশের শেখর দাস। তৃণমূল নেতা তার সাথে তাঁর দেহরক্ষীকে আততায়ীরা গুলি করে পালানোর পর স্থানীয়েরা দু’জনকে রঘুনাথপুর মেডিক্যাল কলেজ ক্লিনিকে নিয়ে যান। সেখানেই ধনঞ্জয়কে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকেরা। পরে শেখরকে দুর্গাপুরের ১টি বেসরকারি ক্লিনিকে স্থানান্তরিত করা হয়। তিনি আপাতত সুস্থ বলে খবর।

Advertisement

এই ঘটনায় কড়া হয় রাজনৈতিক চাপান-উতোর। বিক্ষোভ শুরু করে তৃণমূল। তড়িঘড়ি বিশেষ তদন্তকারী দল আকার করে পুলিশ। সেই টিমের মাথায় ছিলেন পুরুলিয়ার পুলিশ সুপার অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। এই হত্যার ঘটনার পর রাজ্যপাল সিভি আনন্দ বোস ধনঞ্জয়ের পরিবারের মেম্বারদের সঙ্গে ফোন করে কথা বলেন। ধনঞ্জয়ের গৃহ যান রাজ্যের আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক।

পুলিশ সূত্রে খবর, তিনটি গুলি লেগেছিল ধনঞ্জয়ের শরীরে। আর নিরাপত্তারক্ষীর লেগেছিল একটি গুলি। পুলিশ সূত্রে খবর, হেতু অভিযুক্ত আরজু অধিক দিন ধরে ঝাড়খণ্ডের বোকারোতে থাকতেন। সেখান হতে রেলের সিন্ডিকেট চালাতেন তিনি। তাঁর কাছ থেকে ৭.৬৫ এমএম পিস্তল উদ্ধার হয়ে গিয়েছে বলে খবর।

খুনের ঘটনার পর দিন অর্থাৎ, শুক্রবার পুরুলিয়ার বেতো গ্রাম পঞ্চায়েতের কংগ্রেস প্রার্থী আরশাদ হোসেন এবং মহম্মদ জামাল নামে দু’জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। খতিয়ে দেখা হয় এরিয়া হতে সংগৃহীত সিসিটিভি ফুটেজ। জেলা পুলিশ সুপার অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘অভিযোগ দায়ের হওয়া দু’জনকে গ্রেফতার করেছে আদ্রা থানা।’’ পুলিশ সূত্রে খবর, আরশাদ বেকো গ্রাম পঞ্চায়েতের কংগ্রেস প্রার্থী। সম্প্রতি এই আরজুর ভূমিকা কী ছিল, তা জানার ট্রাই চালাচ্ছেন তদন্তকারীরা।

Advertisement

আরও পড়ুন

Latest articles

Leave a Comment

%d bloggers like this: