মাথার দাম ১,২৫,০০০! খুন

Staff Reporter

মাথার দাম ১,২৫,০০০! খুন, ডাকাতিতে অভিযুক্ত সাতসকালে এনকাউন্টারে নিহত উত্তরপ্রদেশে

উত্তরপ্রদেশে একজন অপরাধী সাতসকালে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িত হয়েছিলেন। সেই সংঘর্ষে তিনি এনকাউন্টারের মাধ্যমে নিহত হয়েছিলেন। পুলিশ জানিয়েছে যে, সে বিরুদ্ধে খুন, ডাকাতি সহ মোট ১৩টি মামলা ছিল।

উত্তরপ্রদেশে সাতসকালে এনকাউন্টারের মাধ্যমে একজন দুষ্কৃতির মৃত্যু হয়েছিল। তার বিরুদ্ধে খুন, খুনের চেষ্টা এবং ডাকাতির একাধিক অভিযোগ ছিল। পুলিশ দীর্ঘ দিন ধরে তাকে খুঁজছিল। মঙ্গলবার ভোরে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের পরে এনকাউন্টারে মৃত্যু হয়েছিল। এই দুষ্কৃতির নাম ছিল মহম্মদ গুফরান। উত্তরপ্রদেশের কৌশাম্বী জেলায় মঙ্গলবার সকালে তাঁর সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। গুফরান কোথায় গা ঢাকা করে আছেন, জানতে পেরে গিয়েছিল পুলিশ। গোপন উৎসে খবর পেয়ে কৌশাম্বীর সমদা সুগার মিলের কাছে তাঁর ঠিকানা পরলেই তাঁকে ধরে নেওয়া হয়। তবে এরপরও গুফরান পুলিশকে দেখে তাঁর পালানোর চেষ্টা চালিয়ে আসলেন।

বাইকে চড়ে তিনি পালানোর চেষ্টা করেছিলেন বলে জানিয়েছে খবর। পুলিশ তাকে ঘিরে ফেলে এবং গুফরানকে গুলি ছাড়ার উদ্দেশ্যে গুলি চালানো হয়েছে। ভোরে ৫টায় তাঁর এনকাউন্টারে মৃত্যু হয়। ঘটনাস্থল থেকে গুফরানের বাইক এবং পিস্তল উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, গুফরানের বিরুদ্ধে উত্তরপ্রদেশের বিভিন্ন জেলায় মোট ১৩টি মামলা ছিল। তিনি একাধিক খুন, খুনের চেষ্টা এবং ডাকাতিতে অভিযোগের শিকার ছিলেন। এ ছাড়াও, প্রতাপগড় এবং সুলতানপুরের ডাকাতিতেও তাঁর নাম জড়িত ছিল।

পুলিশের দৃষ্টিতে তিনি সব প্রতিবেশী স্থানে ঘুরতে চান্ছিলেন। তাঁর এনকাউন্টার করা হয়েছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স (এসটিএফ) দ্বারা। কৌশাম্বীর এসপি ব্রিজেশ শ্রীবস্তব জানিয়েছেন, গুফরানের মাথার ডাম ধারণ করা হয়েছিল ১ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা। তাঁর সন্ধান দিতে পারলে বা তাঁকে ধরতে পারলে পুলিশ তাকে উক্ত পুরস্কার দিতে ঘোষণা করেছে। গুলিবিদ্ধ গুফরানকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। কিন্তু চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেছেন।

পরিসংখ্যান অনুসারে, ২০১৭ সালে যোগী আদিত্যনাথ উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর পদে বসার পর থেকে রাজ্যে প্রায় ১১ হাজার এনকাউন্টারের ঘটনা ঘটেছে। সেখানে মোট ১৮৫ জন দুষ্কৃতি এনকাউন্টারের মাধ্যমে নিহত হয়েছেন।

Advertisement

আরও পড়ুন

Latest articles

Leave a Comment

%d bloggers like this: